1. rashedhabiganj@gmail.com : admin2020 :
  2. habiganjerayna@gmail.com : Habiganjer Ayna : Habiganjer Ayna
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৯:১২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জে সায়হাম কটন মিলের আগুন থামেনি, জেলা প্রশাসকের পরিদর্শন অবশেষে ডিসির নির্দেশে বহু অপকর্মের হোতা প্রতারক আফজাল ধরাশায়ী, অতঃপর জেলহাজতে চুনারুঘাটে ৭ শতাধিক পরিবারে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছে প্রবাসী গ্রুপ ‘হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ মুক্তিযোদ্ধাদের বীরগাথা’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শুদ্ধাচার পুরস্কারের টাকায় চিকিৎসকদের সুরক্ষায় গ্লাস কর্ণার করে দিলেন সওজ নির্বাহী প্রকৌশলী হবিগঞ্জে মৎস্য সপ্তাহে জেলা প্রশাসকের নতুন কর্মসূচী, ‘জাল দাও, ত্রাণ নাও’ হবিগঞ্জে বিপূল পরিমাণ অবৈধ জাল আটক করে পুড়িয়ে ধ্বংস, কারাদণ্ড হবিগঞ্জে জেলেদের নিরাপত্তায় লাইফ জ্যাকেট ও প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ মাধবপুরে অবৈধ বালু উত্তোলন ও পরিবহনের দায়ে ২ জনকে অর্থদণ্ড হবিগঞ্জে নকল কারখানা, ৩ জনের কারাদণ্ড-লাখ টাকা জরিমানা

শুদ্ধাচার পুরস্কারের টাকায় চিকিৎসকদের সুরক্ষায় গ্লাস কর্ণার করে দিলেন সওজ নির্বাহী প্রকৌশলী

  • আপডেট সময় শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০
  • ৫৪ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : শুদ্ধাচার পুরস্কারের সম্মানীর অর্থ দিয়ে চিকিৎসকদের সুরক্ষায় গ্লাস কর্ণার তৈরি করে দিলেন হবিগঞ্জের সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সজিব আহমেদ। হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আজ দুপুরে ফিতা কেটে কর্ণারটির উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মর্জিনা আক্তার। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মুবিন উদ্দিন চৌধুরী, এনডিসি প্রতিক মন্ডল প্রমূখ। এ ব্যাপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মর্জিনা আক্তার বলেন, সজিব আহমেদ তার কর্মস্থলে সফলভাবে দায়িত্ব পালনের ফলস্বরুপ তাকে শুদ্ধাচার পুরস্কারে নির্বাচিত হয়েছেন। আর পুরস্কারের টাকা দিয়ে তিনি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষায় যে কাজটি করেছেন তা অবশ্যই মহৎ কাজ।তার এ কাজের জন্য হবিগঞ্জবাসী তাকে স্মরণে রাখবে। নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সজিব আহমেদ জানান, আমি চিন্তা করেছি পুরস্কারের এ টাকাতো আমার পাওয়ার কথা ছিলনা। বিশেষ বোনাস হিসেবে এ টাকাগুলো পেয়েছি। তাই করোনা মহামারীর সময়ে এ টাকা দিয়ে কিছু একটা করার কথা ভাবি। পরে জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান মহোদয়ের সাথে পরামর্শক্রমে ডাক্তারদের সুরক্ষায় এ কর্ণার তৈরির জন্য আমি টাকাগুলো জেলা প্রশাসকের কাছে প্রদান করি। পরে জেলা প্রশাসন সদর হাসপাতালে এ কর্ণারটি তৈরি করে দেন।  আমার বিশ্বাস, আমার এ ক্ষুদ্র প্রয়াস ফ্রন্ট লাইন যোদ্ধা চিকিৎসকদের সুরক্ষায় কিছুটা হলেও উপকারে আসবে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020
Theme Developed By ThemesBazar.Com